লক্ষ্মীপুরে বোরো উৎপাদন ব্যাহত হওয়ার আশংকায়,ফারমার্স ফোরামের উদ্বেগ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ পানি সরবরাহ না থাকায় লক্ষ্মীপুরে চলতি বোরো মৌসুমে বোরো ধান উৎপাদন ব্যাহত হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। চলতি বোরো মৌসুমে জেলার প্রায় ২৮৫০০ হেক্টর কৃষি জমিতে বোরো ধান চাষে কয়েক লাখ কৃষকের স্বপ্ন ক্ষীণ হয়ে পড়েছে।মৌসুমের শুরুতেই কৃষকদের প্রস্তুতি শুরু হলেও প্রস্তুতি নেই লক্ষ্মীপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের।বিকল হয়ে থাকা মজুচৌধুরীর হাট স্লুইসগেট সময়মতো পানি সরবরাহ না দেয়ার কারণে চলতি বোরো মৌসুমে বোরো রোপণ কার্যক্রমের সময় অতিবাহিত হচ্ছে।বীজ তলায় চারার বয়স ৬০ দিন অতিবাহিত হওয়ায় বোরো উৎপাদন ব্যাহত হওয়ার সম্ভাবনায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে জেলার কৃষকগন। লক্ষ্মীপুর ফারমার্স ফোরাম কো অপারেটিভ সোসাইটি এবিষয়ে গত ১২ জানুয়ারি সকাল ১০ টায় শহরের ও দক্ষীন মজুপুরস্হ সংগঠনের অস্থায়ী কার্যালয়ে কার্যনির্বাহী কমিটির এক জরুরি সভা সভাপতি এটিএম খোরশেদ আলমের সভাপতিত্বে মিলিত হয়। সভায় জেলার কৃষকগন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে বার বার যোগাযোগ করেও পানি সরবরাহ না পাওয়ায় উদ্বেগ বক্তারা উদ্বেগ প্রকাশ করেন। তারা এ বিষয়ে মাননীয় জেলা প্রশাসক মহোদয়ের সু-দৃষ্টি কামনা করেন। অন্যদিকে ১৬ জানুয়ারি সকাল ১১ টায় ফারমার্স ফোরামের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এর সমন্বয়ে ৩ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল জেলা প্রশাসক মহোদয়ের সাথে বিষয়টি নিয়ে আলোচনায় মিলিত হলে মাননীয় জেলা প্রশাসক মহোদয় জানান,তিনি স্লুইস গেট পরিদর্শন করেছেন। সেখানে কাজ চলছে। তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে দ্রুত কাজ সম্পুর্ন করে পানি সরবরাহের নির্দেশ দিয়েছেন।তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন যে, আগামী ২/৩ দিনের মধ্যেই পানি সরবরাহ করা সম্ভব হবে। উপ-পরিচালক কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, লক্ষ্মীপুর ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মহোদয় কে অবহিত করার জন্য অনুলিপি প্রেরণ করে ফারমার্স ফোরাম কো অপারেটিভ সোসাইটি। এদিকে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ফারমার্স ফোরাম কো অপারেটিভ সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক ও সাংবাদিক এস এম আওলাদ হোসেন বলেন সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করার জন্য লক্ষ্মীপুর পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষ পুর্ব থেকে কোন রকম প্রস্তুতি নেয়নি বলেই হুমকির মুখে লক্ষ্মীপুরের কয়েক লাখ কৃষকের প্রায় ২৮৫০০ হেক্টর জমিতে চলতি বোরো ধান উৎপাদন ব্যাহত হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। সরকারের সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জনাব আওলাদ হোসেন আশা প্রকাশ করেন।

Facebooktwittergoogle_pluspinterestlinkedin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *