স্ত্রীর বাসা হতে গলাকাটা অবস্থায় উদ্ধারকৃত স্বামী মারা গেলেন

দুইদিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে ২০ অক্টোবর সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় চমেকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেলেন স্ত্রীর বাসা হতে গলাকাটা অবস্থায় উদ্ধারকৃত স্বামী মো. ফখরুল ইসলাম (২৮)।

গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ছয়টায় রাউজান উপজেলা শহরের গহিরা জনতা ব্যাংক সংলগ্ন আবু তাহের ভবনের ৩ তলাস্থ তার সাবেক স্ত্রীর ভাড়া বাসার ছাদ থেকে হাত-পা বাঁধা গলাকাটা অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে। পরে উদ্ধারকারীরা তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় প্রথমে গহিরাস্থ জেকে মেমোরিয়াল হাসপাতালে নেয়। পরে সেখান থেকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল হতে তার তালাক নেওয়া স্ত্রী ও শাশুড়িকে আটক করে।

নিহত ফখরুল ইসলাম উপজেলার পৌর এলাকার ২নম্বর ওয়ার্ডের গহিরা মোবারকখীল গ্রামের মো. তাজুল ইসলামের পুত্র। শুক্রবার ফখরুলের ছোট ভাই নুরুল ইসলাম বাদী হয়ে হত্যার চেষ্টায় একটি মামলা দায়ের করেছিলেন।এক বছর পূর্বে গহিরা ইউনিয়নের দলই নগর গ্রামের আবু বক্কর বাবুলের কন্যা উম্মে হাবিবা মায়ার (১৮) সঙ্গে ফখরুল ইসলাম বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। ২ মাস আগে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে।

রাউজান থানা পুলিশ ও এলাকাবাসি জানান, গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে স্থানীয়রা ওই বাসায় আগুনের শিখা ও ধোঁয়া দেখে এগিয়ে আসেন। তারা আগুন নেভাতে সক্ষম হলেও কিছু আসবাবপত্র পুড়ে যায়। এমতাবস্থায় চিৎকার শুনে ছাদে উঠে পা বাঁধা ও গলাকাটা অবস্থায় ফখরুলকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় একটি হাসপাতাল ও পরে সেখান হতে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়।

আহত ফখরুলের মা জাহানারা বেগম বলেন, বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টায় আমার ছেলেকে ফোনে ডেকে নিয়ে যায়। পরে আমার কাছে খবর আসে আমার ছেলেকে জবেহ করা হয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রাউজান থানার সেকেন্ড অফিসার নুরুন নবী বলেন, শনিবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান ফখরুল। এই ঘটনায় তার স্ত্রী ও শাশুড়িকে আটক করা হয়েছে।

Facebooktwittergoogle_pluspinterestlinkedin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *